মঙ্গলবার, ২৮ Jun ২০২২, ০২:৪০ পূর্বাহ্ন

সংক্রমণ এড়াতে পিরিয়ডের সময় করণীয়

সংক্রমণ এড়াতে পিরিয়ডের সময় করণীয়

মেয়েরা এখনও ঋতুস্রাব নিয়ে খোলামেলা কথা বলতে ইতস্ততবোধ করেন। যার কারণে অনেক অসুখই সঠিক চিকিৎসা পায় না।

ফলে পরবর্তীতে তা আরও বড় কোনো সমস্যা হয়ে দেখা দিতে পারে। তাই বড় কোনো সমস্যার মুখোমুখি না হতে চাইলে দূর করতে হবে ছোটখাট সব সমস্যা।

পিরিয়ড চলাকালীন মেয়েরা শারীরিক ও মানসিক নানান সমস্যার মধ্য দিয়ে যায়। এইসময় শরীরে অনেক হরমোনাল পরিবর্তনও ঘটে,

যার কারণে প্রতিটি মেয়েকে নিজস্ব পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার দিকে খেয়াল রাখা উচিত। নানান প্রচার, অভিযান ও প্রচেষ্টা সত্ত্বেও, ঋতুস্রাব নিয়ে সচেতনতা এখনও অনেকের মধ্যেই তৈরি হয়নি।

ঋতুস্রাব একটি স্বাস্থ্যকর বায়োলজিকাল প্রক্রিয়া।  বেশিরভাগ নারীই পিরিয়ডের সময় অস্বাস্থ্যকর থাকেন,

যেমন – তারা পুরো দিন একটা স্যানিটারি ন্যাপকিন ব্যবহার করেন বা যৌনাঙ্গ সঠিকভাবে পরিষ্কার করেন না।

যদি এই দিনগুলোতে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার দিকে নজর না দেয়া হয় তাহলে ভেজাইনাল ইনফেকশনের পাশাপাশি বন্ধ্যাত্ব সম্পর্কিত সমস্যাও হতে পারে।

তাই আজকের এই বিশেষ দিনে আসুন জেনে নেয়া যাক, পিরিয়ড চলাকালীন সঠিক স্বাস্থ্যবিধি বজায় রাখার জন্য প্রত্যেক নারীর কী করা উচিত-

নির্দিষ্ট সময় পরপর প্যাড পরিবর্তন: ঋতুস্রাবের কারণে খুব তাড়াতাড়ি প্যাড স্যাঁতসেঁতে এবং ভেজা হতে পারে।

এইসময় একই স্যানিটারি ন্যাপকিন অনেকক্ষণ ধরে পরে থাকলে যোনিতে সংক্রমণ,  মূত্রনালীর সংক্রমণ এবং ত্বকে র্যাশ জাতীয় সমস্যা হতে পারে।

তাই, আপনার প্রতি পাঁচ ঘণ্টা পরপর প্যাড পরিবর্তন করা উচিত।

সাবান ব্যবহার করা এড়িয়ে চলুন: সাবান দিয়ে পরিষ্কার করলে ভালো ব্যাকটেরিয়া মারা যেতে পারে, ফলে সংক্রমণের পথ সহজ হয়।

পরিবর্তে, হালকা গরম পানি দিয়ে জায়গাটি ধুয়ে নিন এবং আপনি বাহ্যিক অংশগুলোতে হালকা সাবান ব্যবহার করতে পারেন তবে ভুলেও ভেতরে সাবান ব্যবহার করবেন না।

পরিষ্কারের সঠিক পদ্ধতি অবলম্বন করুন: সংক্রমণ এড়াতে সঠিকভাবে পরিচ্ছন্ন থাকুন।

অন্তর্বাসগুলো নিয়মিত পরিবর্তন করা উচিত এবং ভালোভাবে সেগুলো পরিষ্কার করুন,

যাতে আপনি সংক্রমণ এবং চুলকানি এড়াতে পারেন।

স্যানিটারি প্যাড সঠিকভাবে ফেলুন: আপনার ব্যবহৃত ন্যাপকিন সঠিকভাবে ত্যাগ করুন,

নাহলে এগুলো থেকে সংক্রমণ ছড়াতে পারে।

প্যাড টয়লেটের মধ্যে না ফেলার পরামর্শ দেয়া হয়। এগুলো সঠিকভাবে পেপারে মুড়িয়ে ফেলা উচিত।

হালকা গরম পানিতে গোসল: পিরিয়ডের সময় গোসল করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ,

কারণ এটি আপনার শরীরকে পরিষ্কার করার পাশাপাশি সতেজ রাখতে সাহায্য় করে।

এছাড়াও, হালকা গরম পানিতে গোসল করলে পিরিয়ডের ব্যথা থেকে মুক্তি দিতে সহায়তা করে এবং শরীরের ক্লান্তি দূর হয় ও সতেজতা আসে।

আরামদায়ক পোশাক পরুন: পিরিয়ডের সময় আরামদায়ক এবং ঢিলেঢালা পোশাক পরুন,

এতে আপনি শারীরিক ও মানসিকভাবে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করবেন।

এর ফলে, যথাযথ বায়ুপ্রবাহের পাশাপাশি সংবেদনশীল জায়গার চারপাশে ঘাম বের হওয়াও বন্ধ হবে।

 

শেয়ার করুন





DEVELOP BY SJ WEB HOST BD
Design By Rana